1. mahadihasaninc@gmail.com : admin :
  2. hossenmuktar26@gmail.com : Muktar hammed : Muktar hammed
বাংলাদেশের জন্য শেখ হাসিনা অপরিহার্য: এনামুল হক শামীম - dailybanglakhabor24.com
  • June 9, 2024, 1:44 pm

বাংলাদেশের জন্য শেখ হাসিনা অপরিহার্য: এনামুল হক শামীম

  • Update Time : শনিবার, আগস্ট ৫, ২০২৩ | সন্ধ্যা ৭:৪৪
  • 45 Time View

নিজস্ব প্রতিবেদক
পানি সম্পদ উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম বলেছেন, একটা সময় মানুষ বলতো আওয়ামী লীগের জন্য শেখ হাসিনা অপরিহার্য। এখন মানুষ বলে শুধু আওয়ামী লীগের জন্যই নয়, বাংলাদেশের জন্যও শেখ হাসিনা অপরিহার্য। স্বাধীনতার জন্য শেখ হাসিনা অপরিহার্য। আজ বাংলাদেশ প্রতিদিন-ওয়ালটন ও বাংলাদেশ প্রতিদিন-র‌্যাংগস বিশ্বকাপ ফুটবল-২০২২ কুইজের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।
কাতার বিশ্বকাপ উপলক্ষ্যে আয়োজিত বাংলাদেশ প্রতিদিন-ওয়ালটন বিশ্বকাপ ফুটবল কুইজ ও বাংলাদেশ প্রতিদিন-র‌্যাংগস ফুটবল বিশ্বকাপ কুইজে বিজয়ী ৩৩ জনের হাতে গতকাল পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়। বাংলাদেশ প্রতিদিন অফিসে আয়োজিত পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন এনামুল হক শামীম। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ প্রতিদিনের সম্পাদক নঈম নিজাম, কালের কণ্ঠের প্রধান সম্পাদক ও বিশিষ্ট কথাসাহিত্যিক ইমদাদুল হক মিলন, ওয়ালটন হাইকেট ইন্ডাস্ট্রির অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক এস এম শোয়েব হোসেন, সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর (মার্কেটিং এন্ড কমিউনিকেশনস) মোহাম্মদ শাহজাদা সেলিম প্রমুখ।
কাতার বিশ্বকাপ উপলক্ষ্যে আয়োজিত এসব কুইজ প্রতিযোগিতায় সারা দেশ থেকে লাখো মানুষ অংশ নেয়।সঠিক উত্তরদাতাদের মধ্যে থেকে লটারির মাধ্যমে ৩৩ জনকে পুরস্কৃত করা হয়। পুরস্কারের মধ্যে ছিল ওয়ালটন ও র‌্যাংসের সৌজন্যে অ্যান্ড্রয়েড টিভি, রেফ্রিজারেটর, এয়ারকন্ডিশনার, স্মার্ট ফোন, ব্লেন্ডার, গ্যাস স্টোভ, রাইস কুকারসহ বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক্স পণ্য।
এ ধরণের কুইজ আয়োজনের জন্য সংশ্লিষ্টদের ধন্যবাদ জানিয়ে এনামুল হক শামীম বলেন, এ ধরণের আয়োজন খেলাধুলাকে এগিয়ে নিতে সহায়তা করে। প্রধানমন্ত্রী নিজেই একজন ক্রীড়ামোদী মানুষ। জাতির পিতার সুযোগ্য সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধা ক্যাপ্টেন শেখ কামাল ছিলেন একজন দক্ষ ক্রীড়া সংগঠক। গতকাল তার ৭৪তম জন্মবার্ষিকীতে প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশের ক্রীড়া সংগঠকদের পুরস্কৃত করেছেন। তিনি খেলাধুলাকে এগিয়ে নিতে সব ধরণের সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছেন। ১৯৯৬ সালে শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী হিসেবে প্রথম ক্ষমতায় আসার পর বাংলাদেশ টেস্টের মর্যাদা পেয়েছিল। আমরা যখন ছাত্র ছিলাম তখন খেলাটা ফুটবলের মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল। তখন মেয়েরা ফুটবল খেলবে ভাবতেই পারিনি। আজ মেয়ে ফুটবলাররা সাফ গেমসে চ্যাম্পিয়ন হয়। ক্রিকেটে আজ সাকিব আল হাসান, মাশরাফি, তাসকিনরা বিশ্বসেরা খেলোয়াড়। আজ বাংলাদেশ পাকিস্তানকে হোয়াইট ওয়াস করে। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি খাতকেও খেলাধুলার উন্নয়নে এগিয়ে আসতে হবে। বসুন্ধরা গ্রুপকে ধন্যবাদ জানাই তারা খেলাধুলায় সব সময় সহযোগিতা করে। বসুন্ধরা কিংস ফুটবলে দর্শকদের মাঠে ফিরিয়ে এনেছে। ওয়ালটন আমাদের দেশের পণ্য। তারাও খেলাধুলায় পৃষ্ঠপোষকতা করছে।
তিনি বলেন, সব দিক দিয়ে আমাদের সক্ষমতা বেড়েছে। সাবমেরিন কেবল দিয়ে প্রত্যন্ত চরেও বিদ্যুৎ পৌঁছে গেছে। শরীয়তপুরের সবজি এখন ইউরোপের বাজারে যায়। যোগাযোগ ব্যবস্থায় বিপ্লব সাধিত হয়েছে। ১৪ বছর আগে নদী ভাঙন ছিল সাড়ে নয় হাজার হেক্টর, এখন সেটা কমে সাড়ে তিন হাজার হেক্টরে দাঁড়িয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একজন ব্যতিক্রমধর্মী সরকারপ্রধান। তিনি মহাকাশে স্যাটেলাইট পাঠিয়ে যেমন স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে চান, আবার আমার বিধমা মা, বয়স্ক বাবা, প্রতিবন্ধী ভাই-বোন, এমনকি মাতৃত্বকালীন ভাতা দিয়ে যে সন্তান মাতৃগর্ভে থাকে তারও সুরক্ষা নিশ্চিত করেছেন। গৃহহীনদের ঘর দিয়েছেন। এখন সবার হাতে হাতে মোবাইল, ঘরে ঘরে ট্যাপটপ, কম্পিউটার। একটা সময় মানুষ বলতো আওয়ামী লীগের জন্য শেখ হাসিনা অপরিহার্য। এখন মানুষ বলে বাংলাদেশের জন্য শেখ হাসিনা অপরিহার্য। স্বাধীনতার জন্য শেখ হাসিনা অপরিহার্য।
কুইজে বিজয়ীদের অভিনন্দন জানিয়ে বাংলাদেশ প্রতিদিন সম্পাদক নঈম নিজাম বলেন, বাংলাদেশ প্রতিদিন যাত্রা শুরুর পর থেকেই বিশ্বকাপের মতো সকল আন্তর্জাতিক পর্যায়ের আয়োজন উপলক্ষে কুইজের আয়োজন করে আসছে। আমার কাছে ভালো লাগে যখন প্রত্যন্ত গ্রামের একজন কুইজে অংশ নিয়ে পুরস্কার জিতে নেন। আপনারা বাংলাদেশ প্রতিদিনের সঙ্গে আছেন বলেই কুইজে অংশগ্রহণ করেন। খেলাধুলা, উন্নয়ন, অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি সব দিক দিয়ে বাংলাদেশ এখন বিশ্বের কাছে চমক। আমাদের ক্রীড়াঙ্গন বদলে যাচ্ছে। সেই পরিবর্তনের যাত্রায় আমরা সব সময় সঙ্গী হবার চেষ্টা করেছি। আগামীতেও করব। এ ধরণের কুইজ আয়োজনে সব সময় বাংলাদেশ প্রতিদিনের সঙ্গে থাকার জন্য ওয়ালটনকে ধন্যবাদ। তারাও দেশের মধ্যে ইলেক্ট্রনিক পণ্য উৎপাদন ও রপ্তানি করে দেশের জিডিপিতে বড় অবদান রাখছে।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category