1. mahadihasaninc@gmail.com : admin :
  2. hossenmuktar26@gmail.com : Muktar hammed : Muktar hammed
তিনি আপনার ভার তুলে নেবেন - dailybanglakhabor24.com
  • June 9, 2024, 12:16 pm

তিনি আপনার ভার তুলে নেবেন

  • Update Time : বুধবার, এপ্রিল ২৬, ২০২৩ | সন্ধ্যা ৬:১৬
  • 73 Time View

মুফতি মেনক

 

এক. আপনি মাঝে মাঝে হতাশ বোধ করবেন। আপনার মনে হবে যেন চোখের সামনে সবকিছু ভেঙ্গে পড়ছে। আপনি অনুভব করবেন যে আপনি নিজেই জিনিসগুলি পরিচালনা করতে পারবেন না। আপনার অনুমান হয় না. আপনি যখন তার কাছে চান তখন সর্বশক্তিমান এটি পছন্দ করেন। প্রত্যয়ের সাথে প্রার্থনা করুন। তিনি আপনার ভার তুলে নেবেন।

পূনশ্চ:

এক: অন্যরা কী করেছে তা শুনে আপনি অভিভূত বা দুঃখিত হবেন না। আপনি ভাবতে পারেন যে আপনি কম অর্জন করেছেন কিন্তু আপনি যদি আপনার সেরা চেষ্টা করেন তবে সর্বশক্তিমান তাতেই আগ্রহী। তিনি আপনার সংগ্রাম সম্পর্কে জানেন। চেষ্টা চালিয়ে যান এবং চূড়ান্ত সময়ে হাল ছেড়ে দেবেন না।

দুই. সর্বশক্তিমানের দিকে ফিরে যেতে অপেক্ষা করবেন না। এখনই এটি করুন। যত আগে এটি হয় ততই ভালো। তাঁর সন্ধান করুন। তাঁকে ধন্যবাদ জানান এবং আপনি উন্নত জীবনের পথে যাচ্ছেন। আপনি প্রার্থনা করার আগে জিনিসগুলি নিখুঁত হওয়ার জন্য অপেক্ষা করতে হবে- এটি একটি ভুল ধারণা। কোন কিছু কখনই নিখুঁত হতে পারে না। এখনই শুরু করুন।

তিন. আপনি যখন সর্বশক্তিমানের পথে কাজ করেন, আপনি তখন বিজয়ী হন। প্রত্যেকবার। এটি অবিলম্বে প্রকাশ নাও হতে পারে তবে শেষ পর্যন্ত এটি অবশ্যই দৃশ্যমান হবে। শয়তান সবসময় হস্তক্ষেপ করবে। নিজেকে তার ফিসফিসানি থেকে রক্ষা করতে ভুল করবেন না। শক্ত হোন। অবিচল থাকুন এবং খাদে আটকে থাকবেন না।

চার. আপনি যদি সর্বশক্তিমানের সাথে আপনার সম্পর্কের যত্ন নেন তবে আপনি কখনও কল্পনাও করেননি এমনভাবে তিনি আপনার যত্ন নেবেন। অতএব এই সম্পর্কের লালন করুন এবং সেই বন্ধনটি নির্মাণ করুন। তিনি আপনাকে আপনার প্রয়োজনীয় শক্তির যোগান দেবেন। তিনি সর্বদা আপনাকে গড়ে তুলছেন এমনকি যখন তিনি আপনাকে ভাঙ্গছেন বলে মনে হয় তখনও। তাঁর উপর আস্থা রাখুন।

দ্রষ্টব্য:

যখন শান্তি বা শংকার কোন সংবাদ তাদের কাছে আসে তখন তারা তা প্রচার করে থাকে। যদি তারা তা রাসুল এবং তাদের মধ্যে যারা নির্দেশ প্রদানের অধিকারী তাদেরকে জানাত, তবে তাদের মধ্যে যারা তথ্য অনুসন্ধান করে তারা সেটার যথার্থতা নির্ণয় করতে পারত। তোমাদের প্রতি যদি আল্লাহ্‌র অনুগ্রহ ও রহমত না থাকত তবে তোমাদের অল্প সংখ্যক ছাড়া সকলে শয়তানের অনুসরণ করত। (সূরা নিসা :৮৩);

তোমরা যাকে আল্লাহর শরীক কর, আমি তাকে কিরূপে ভয় করব? অথচ তোমরা ভয় কর না যে, তোমরা আল্লাহর সাথে এমন কিছুকে শরীক করে চলছ; যাদের সম্পর্কে আল্লাহ তোমাদের নিকট কোন প্রমাণ অবতীর্ণ করেননি। সুতরাং যদি তোমরা জান (তাহলে বল), দু’দলের মধ্যে কোন্ দলটি নিরাপত্তা লাভের অধিকারী?’ (সূরা-আনয়াম :৮১);

অতপর দুঃখের পর তিনি তোমাদেরকে তন্দ্রারূপে প্রশান্তি, যা তোমাদের একদলকে আচ্ছন্ন করেছিল এবং একদল জাহিলী যুগের অজ্ঞের ন্যায় আল্লাহ্‌ সম্বন্ধে অবাস্তব ধারণা করে নিজেরাই নিজেদেরকে উদ্বিগ্ন করেছিল এ বলে যে, আমাদের কি কোন কিছু করার আছে? বলুন, সব বিষয় আল্লাহরই ইখতিয়ারে। যা তারা আপনার কাছে প্রকাশ করে না, তারা তাদের অন্তরে সেগুলো গোপন রাখে। তারা বলে, এ ব্যাপারে আমাদের কোন কিছু করার থাকলে আমরা এখানে নিহত হতাম না। বলুন, যদি তোমরা তোমাদের ঘরে অবস্থান করতে তবুও নিহত হওয়া যাদের জন্য অবধারিত ছিল তারা নিজেদের মৃত্যুস্থানে বের হত। এটা এজন্যে যে, আল্লাহ তোমাদের অন্তরে যা আছে তা পরীক্ষা করেন এবং তোমাদের মনে যা আছে তা পরিশোধন করেন। আর অন্তরে যা আছে সে সম্পর্কে আল্লাহ বিশেষভাবে অবগত। (সূরা আলে ইমরান : ১৫৪);

স্মরণ কর, যখন তিনি তার পক্ষ থেকে স্বস্তির জন্য তোমাদেরকে তন্দ্রায় আচ্ছন্ন করেন এবং আকাশ থেকে তোমাদের উপর বৃষ্টি বর্ষণ করেন যাতে এর মাধ্যমে তিনি তোমাদেরকে পবিত্র করেন, আর তোমাদের কাছ থেকে শয়তানের কুমন্ত্রণা দূর করেন, তোমাদের হৃদয়সমূহ দৃঢ় রাখেন এবং এর মাধ্যমে তোমাদের পাসমূহ স্থির রাখেন। (সূরা আনফাল : ১১);

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category