1. mahadihasaninc@gmail.com : admin :
  2. hossenmuktar26@gmail.com : Muktar hammed : Muktar hammed
একই দিনে চলে গেলেন স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের দুই কণ্ঠযোদ্ধা বুলবুল মহলানবীশ ও আশফাকুর রহমান খান - dailybanglakhabor24.com
  • June 5, 2024, 3:29 pm

একই দিনে চলে গেলেন স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের দুই কণ্ঠযোদ্ধা বুলবুল মহলানবীশ ও আশফাকুর রহমান খান

  • Update Time : শুক্রবার, জুলাই ১৪, ২০২৩ | রাত ৯:২৯
  • 60 Time View

অনলাইন ডেস্ক
সাংস্কৃতিক অঙ্গণের মানুষদের শোকের সাগরে ভাসিয়ে একই দিনে না ফেরার দেশে চলে গেলেন স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের দুই কণ্ঠযোদ্ধা নজরুলসঙ্গীতশিল্পী বুলবুল মহলানবীশ ও স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের অনুষ্ঠান ব্যবস্থাপক আশফাকুর রহমান খান।
বৃহস্পতিবার ভোর রাতে শেষ নিঃশ্বাস  ত্যাগ করেন বুলবুল মহলানবীশ আর শুক্রবার সকাল আটটার দিকে মৃত্যুবরণ করেন আশফাকুর রহমান খান।
তাদের মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়েছে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ। এছাড়া সাংগঠনিকভাবে শোকপ্রকাশ করে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশান, জাতীয় কবিতা পরিষদ, বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদ, বাংলাদেশ পথনাটক পরিষদ, বাংলাদেশ গণসঙ্গীত সমন্বয় পরিষদ,বাংলাদেশ নৃত্যশিল্পী সংস্থা, বাংলাদেশ চারুশিল্পী সংসদ,বাংলাদেশ সঙ্গীত সংগঠন সমন্বয় পরিষদ,বাংলাদেশ যাত্রা শিল্প উন্নয়ন পরিষদ, আইটিআই বাংলাদেশ কেন্দ্র,অভিনয় শিল্পী সংঘ,বাংলাদেশ গ্রাম থিয়েটার,বাংলাদেশ শিশু সংগঠন ঐক্যজোট,বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট ও বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী।
এক শোকবার্তায় বক্তারা বলেন, একই দিনে মাত্র কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে দুই সূর্য সন্তানকে হারিয়ে শোকে মূহ্যমান জাতি। তাদের দুজনের প্রয়াণে দেশের সংস্কৃতি জগতের অপূরণীয় ক্ষতি হলো। শোকসন্তপ্ত পরিবার ও স্বজনদের প্রতি শোক এবং সমবেদনাও জানান সংস্কৃতিকর্মীরা।
স্বাধীন বাংলার কণ্ঠযোদ্ধা ও নজরুলসঙ্গীতশিল্পী বুলবুল মহলানবীশ দীর্ঘদিন পারকিন্সসহ নানা বাধ্যর্কজনিত রোগে ভুগছিলেন বৃহস্পতিবার ভোরে তিনি না ফেরার দেশে চলে যান। মৃত্যুর সময় তার বয়স হয়েছিল ৭০ বছর। তার দুই সন্তান আমেরিকা থাকার কারণে এই রিপোর্ট লেখার সময় পর্যন্ত শেষ কৃত্যের ব্যাপারে কোন সিদ্ধান্ত জানা যায়নি। দুইদিন পর মরদেহের শেষকৃত্য সম্পন্ন হওয়ার কথা রয়েছে বলে পারিবারিক সূত্র জানিয়েছে। বর্তমানে মরদেহটি রাজধানীর একটি প্রাইভেট হাসপাতালের হিমঘরে রয়েছে। 
১৯৫৩ সালের ১০ মার্চ জন্মগ্রহণ করেন বুলবুল মহলানবীশ। তিনি ছিলেন একাধারে কবি, লেখক, সঙ্গীত, নাট্য ও আবৃত্তিশিল্পী। টেলিভিশন, বেতার ও মঞ্চে সমান দক্ষতায় শিল্প-সাহিত্য-সংস্কৃতি বিষয়ক অনুষ্ঠানের উপস্থাপনাও করেছেন তিনি। শিশু ও কিশোর বয়সেই তিনি মহান স্বাধীনতা সংগ্রামের প্রস্তুতি পর্বে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন। এরপর মুক্তিযুদ্ধ শুরু হলে তিনি কলকাতায় গিয়ে যুক্ত হন স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের কার্যক্রমের সাথে। ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বহুল আকাক্সিক্ষত বিজয় অর্জনের পর যখন পাকিস্তানি সেনাবাহিনী যৌথবাহিনীর কাছে আত্মসমর্পণ করে তখন স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রে বেজে ওঠে “বিজয় নিশান উড়ছে ওই” গানটি। এ গানের অন্যতম কণ্ঠশিল্পী ছিলেন বুলবুল মহলানবীশ। এছাড়া, মুক্তিযুদ্ধের সময় জনপ্রিয় শ্রুতি নাটক “জল্লাদের দরবার”-এরও অন্যতম ককণ্ঠশিল্পী ছিলেন তিনি। স্বাধীনতা পরবর্তী সময়েও যেকোন প্রগতিশীল, ন্যায়সঙ্গত আন্দোলনে সক্রিয় ছিলেন বুলবুল মহলানবীশ। তিনি ছিলেন নজরুলসংগীত শিল্পী পরিষদের সহসভাপতি, রবীন্দ্র একাডেমির সাধরণ সম্পাদক। জাতীয় কবিতা পরিষদ,  কেন্দ্রীয় কচি-কাঁচার মেলা, উদীচী, সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম, স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র শিল্পী পরিষদসহ বহু সাংস্কৃতিক ও সামাজিক সংগঠনের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি।
অন্যদিকে, আশফাকুর রহমান খান ছিলেন স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের অন্যতম সংগঠক এবং অনুষ্ঠান ব্যবস্থাপক। মহান স্বাধীনতা সংগ্রামে অনন্য অবদান রাখা ছাড়াও মুক্তিযুদ্ধের পর তার হাত ধরেই বাংলাদেশ বেতার গড়ে ওঠে। বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচারের অন্যতম সাক্ষীও ছিলেন তিনি। দীর্ঘদিন ধরেই বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন আশফাকুর রহমান খান। ১৪ জুলাই শুক্রবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন তিনি (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮১ বছর। বাদ যোহর রাজধানীর ফার্মগেটের বায়তুশ শরফ জামে মসজিদে নামাজে জানাযা শেষে দাফনের জন্য আশফাকুর রহমান খানের মরদেহ মুন্সীগঞ্জের ষোলশহরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সেখানে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে সমাহিত করার কথা রয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category