1. mahadihasaninc@gmail.com : admin :
  2. hossenmuktar26@gmail.com : Muktar hammed : Muktar hammed
‘আল কুদস দিবস’ ফিলিস্তিন মুক্তির অঙ্গীকার, - dailybanglakhabor24.com
  • May 15, 2024, 7:19 am

‘আল কুদস দিবস’ ফিলিস্তিন মুক্তির অঙ্গীকার,

  • Update Time : শনিবার, এপ্রিল ৬, ২০২৪ | দুপুর ১:১৯
  • 30 Time View

মোহাম্মদ অলিদ বিন সিদ্দিক তালুকদার

আল কুদস দিবস। ইসলাম ও মুসলমানদের নামাজের প্রথম কেবলা বাইতুল আকসা। আজ আন্তর্জাতিক ” আল-কুদস দিবস “। প্রতি বছর রমজান মাসের শেষ শুক্রবার পালিত হয়ে থাকে এ দিবস। ১৯৭৯ সালে ইরানে প্রথম পালিত হয় দিবসটি।

এই দিবস পালনের উদ্দেশ্য হলো ফিলিস্তিনি জনগণের সাথে একাত্মতা প্রকাশ এবং ইসরাইল কর্তৃক জেরুজালেম দখলের বিরুদ্ধে মূলত ক্ষোভ প্রকাশ।

জেরুজালেম শহরের অপর নাম ‘কুদস’ বা ‘আল-কুদস’ (আরবি ভাষায়)। সে অনুযায়ী দিবসটির নাম আল-কুদস দিবস। ১৯৪৮ সালের ১৫ মে ফিলিস্তিনের মূল অধিবাসীদের অধিকাংশকে বিতাড়িত করে ইহুদিরা। সেখানে অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইল গঠন করে। ১৯৬৭ সালে ইসরাইল বায়তুল মুকাদ্দাস দখল করে নেয়। এরপর থেকে শুরু হয় এ দখলদারিত্বের বিরুদ্ধে আল-কুদ্স দিবস পালন করে আসছে গোটা মুসলিম বিশ্ব।

 

ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের প্রথম পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইবরাহীম ইয়াজদি সর্বপ্রথম আল-কুদস দিবস র‍্যালি আয়োজনের ধারণা দেন। তারপর আয়াতুল্লাহ খোমিনী ১৯৭৯ সালে ইরানে এর প্রবর্তন করেন। এরপর থেকে ইরান সরকার প্রতি বছর আল-কুদস দিবসে প্যারেড আয়োজন করে আসছে।

ফিলিস্তিন ও পবিত্র বায়তুল মোকাদ্দাসের দখলদার ইহুদিদের হাত থেকে মুসলমানদের প্রথম কেবলা আল আকসা মসজিদকে মুক্ত করার জন্য মুসলমানদের জাগিয়ে তোলাই এ দিবসের অন্যতম প্রধান লক্ষ্য।

এ ছাড়াও মজলুম ফিলিস্তিনি জাতির ওপর জগদ্দল পাথরের মতো চেপে বসা ইহুদি শাসন, শোষণ, নিপীড়ন ও তাদের নৃশংস হত্যাযজ্ঞের অবসান ঘটানো এবং বায়তুল মোকাদ্দাসকে রাজধানী করে ফিলিস্তিনি জাতির নিজস্ব রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠাসহ মুসলমানদের বিরুদ্ধে সাম্রাজ্যবাদী শক্তিগুলোর মোকাবেলার জন্য মুসলমানদের ঐক্যবদ্ধ করার জন্য কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে এ দিবস।

জেরুজালেম নগরী বিশ্বের অন্যতম পবিত্র স্থান। সব ধর্ম-বর্ণ, জাতিগোষ্ঠীর মানুষ এই নগরীকে শ্রদ্ধা করে থাকেন। সেখানে রয়েছে ইসলামের প্রথম কেবলা পবিত্র বাইতুল আকসা মসজিদ। অথচ ইহুদিদের জবরদখলে ফিলিস্তিনি মুসলিমদের জন্য সেখানে যাওয়া নিয়ন্ত্রিত বলে মনে করেন, লেখক ও কলামিস্ট, জাতীয় জনতা ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, সাপ্তাহিক “বাংলাপোষ্ট ” পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মোহাম্মদ অলিদ বিন সিদ্দিক তালুকদার আন্তর্জাতিক ” আল-কুদ্দুস ” দিবসে গণমাধ্যমে প্রেরিত বিবৃতিতে উপরোক্ত এ কথাগুলো বলেন।

 

শুক্রবার ( ২৫শে রমজান,৫ এপ্রিল) আন্তর্জাতিক “আল কুদস ” দিবস উপলক্ষে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এসব কথা বলেন।

“আল কুদস ” দিবসকে মুসলমানদের প্রথম কেবলা পবিত্র বায়তুল মুকাদ্দাসকে দখলমুক্ত করার আন্দোলনের প্রতীকী দিন হিসাবে আখ্যায়িত করে জাতীয় জনতা ফোরাম কেন্দ্রীয় সংসদ সভাপতি মোহাম্মদ অলিদ বিন সিদ্দিক তালুকদার বলেন, বায়তুল মুকাদ্দাস ও তার আশপাশের এলাকা তথা সমগ্র ফিলিস্তিন ভূখণ্ড বহু নবী-রাসূলের (আ.) স্মৃতি বিজড়িত এবং কুরআন মজিদে এ পুরো ভূখণ্ডকে ‘আর্দে মুকাদ্দাস্’ বা ‘পবিত্র ভূমি’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এ জন্য মসজিদুল আকসা, বায়তুল মুকাদ্দাস ও ফিলিস্তিনে পবিত্র নামগুলো মুসলমানদের ঈমান ও সংস্কৃতির অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ।

তিনি বলেন, বিশ্ব সাম্রাজ্যবাদী ও উপনিবেশবাদী চক্র সাম্প্রদায়িক জায়নিস্টদের ইন্ধন জুগিয়ে ফিলিস্তিনের অধিকার কেড়ে নিয়েছে। তারা একের পর এক গণহত্যা চালিয়ে যাচ্ছে এবং মুসলমানদের বর্বরোচিতভাবে শহর ও গ্রাম থেকে উচ্ছেদ করছে। ফিলিস্তিন জবরদখলদার সাম্প্রদায়িক ইসরাইলের বিরুদ্ধে ফিলিস্তিনিরা সংগ্রাম ও যুদ্ধ করে চলেছে।

তিনি আরোও বলেন,”বিশ্ব আল- কুদস ” দিবসের আন্দোলন ফিলিস্তিনের ইসলামি দিকগুলো ছাড়াও এর অন্যান্য মানবিক ও আইনগত দিকগুলোকে উত্থাপন এবং বিশ্ব জনমতের কাছে তা অনুসরণের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রাথমিক দৃষ্টিতে বিশ্বের কোনো কোনো জাতির জন্য ফিলিস্তিন ইস্যুটি কেবল একটি আরবীয় বা ইসলামি সমস্যা ছিল। এখন এটি বিশ্ব শান্তির জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হিসেবে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category