1. mahadihasaninc@gmail.com : admin :
  2. hossenmuktar26@gmail.com : Muktar hammed : Muktar hammed
আগামী নির্বাচন তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে হবে : মির্জা ফখরুল - dailybanglakhabor24.com
  • May 7, 2024, 9:32 am

আগামী নির্বাচন তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে হবে : মির্জা ফখরুল

  • Update Time : মঙ্গলবার, মে ৩০, ২০২৩ | বিকাল ৩:৩২
  • 53 Time View

নিজস্ব প্রতিবেদক
আগামী নির্বাচনে একটি তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে হবে বলে জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

মঙ্গলবার রাজধানীর শেরে বাংলা নগর প্রয়াত প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের মাজারে ফুলেল শ্রদ্ধা নিবেদন করে সাংবাদিকদের তিনি এই কথা জানান। বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা ও শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ৪২ তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে তার মাজারে ফুলের শ্রদ্ধা দিতে ও দোয়া করতে আসেন দলটির অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

মির্জা ফখরুল বলেন, বাংলাদেশ একদলীয় শাসনের দিকে যাত্রা করছে। যখন দেশের মানুষের ভোটাধিকার কেড়ে নেয়া হয়েছে। যারা জোর করে ক্ষমতায় বসে আছে তাদেরকে পরাজিত করার জন্য সত্যিকার অর্থে একটি গণতান্ত্রিক সরকার প্রতিষ্ঠা করার জন্য, নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে জনগণের ভোট অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য আমরা আন্দোলন শুরু করেছি। আজকে সেই সময়ে আমরা আমাদের এই মহান নেতার শাহাদত বার্ষিকী পালন করছি। আমাদের সমগ্র জাতির কাছে তা প্রাসঙ্গিক।

তিনি বলেন, এই মহান নেতা ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় সমস্ত জাতি যখন অসহায়, তখন তিনি পুরো জাতিকে দিশা দেখানোর জন্য স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছিলেন। মুক্তিযুদ্ধে জাতিকে ঝাঁপিয়ে পড়ার জন্য উপলব্ধ করেছিলেন। মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী সময় যখন দেশ রাজনৈতিক ব্যর্থতায় চলছিল তখন এই মহান মুক্তিযোদ্ধা দেশ ও জাতিকে এগিয়ে নেওয়ার জন্য ত্রাণকর্তা হিসেবে আর্বিভূত হয়েছিলেন। জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করেছিলেন। সিপাহী বিপ্লবের মাধ্যমে দায়িত্ব পাওয়ার তিনি পুরো বাংলাদেশকে এগিয়ে নেওয়ার জন্য কাজ শুরু করেছিলেন। যার কর্মের মধ্যে আজ বাংলাদেশে অবস্থানে আছে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, দুর্ভাগ্য আমাদের তার সহধর্মনী গণতন্ত্রের নেত্রী খালেদা জিয়াকে গৃহবন্দী করে রেখেছে এই সরকার। তার সন্তান তারেক রহমান আজ প্রবাসে নির্বাচিত জীবনযাপন করছেন। ৩৫ লক্ষ মানুষকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি তাদেরকে দমন করার চেষ্টা করা হচ্ছে। এই সময়ে আমাদের এই নেতার শাহাদত বার্ষিকী নতুন করে প্রেরণা যোগাবে। নতুন করে শপথ নিয়েছি হারিয়ে যাওয়া গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করব। একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করার শপথ নিয়েছে বিএনপি।

সকল মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করে সত্যিকার অর্থে গণতান্ত্রিক সমাজ ও রাষ্ট্র নির্মাণে একটি সরকার প্রতিষ্ঠা করা হবে। আমরা এই শপথ এখান থেকে নিয়েছি বলে জানান তিনি।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, মামলাগুলোর রায়ে বোঝা যায় সরকার বিচার বিভাগকে ব্যবহার করে, রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার করে আমাদেরকে দমন করতে চায়। তারা নানাভাবে আমাদের আন্দোলনকে স্তব্ধ করতে চায়। এ আন্দোলনে এক দিনের না দীর্ঘ ১২ বছর ধরে চালিয়ে যাচ্ছি।

এ মামলার রায়ের তীব্র নিন্দা প্রতিবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা মনে করি এটা একটা ফরমায়েশি রায়। এ ধরনের রায় দিয়ে কোন আন্দোলনকে স্তব্ধ করা যাবে না। জনগন তাদের অধিকার অবশ্যই আন্দোলনের মধ্য দিয়ে আদায় করবে। আগামী নির্বাচনে একটি তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন হবে। আমাদের দাবি তাদের পদত্যাগ সংসদ বিলুপ্ত করা ও নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের ব্যবস্থা করা। এই অবস্থান থেকে এক মুহূর্তের জন্য আমরা সরে দাঁড়াবো না।

এসময় উপস্থিত নেতাকর্মীরা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের স্মরণে বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন’ লাল সবুজের পতাকায়, জিয়া তোমায় দেখা যায়, স্বাধীনতার ঘোষক জিয়া, লও লও লও সালাম, জিয়া তোমার স্মরণে ভয় করি না মরণে, জিয়া আমার চেতনা, জিয়া আমার বিশ্বাস।

মাজারে শ্রদ্ধা নিবেদনকালে বিএনপি মহাসচিব ছাড়াও দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার শাহজাহান উমর বীর উত্তম, অধ্যাপক এজেডএম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান, আব্দুস সালাম, যুগ্ম মহাসচিব ফজলুল হক মিলন, সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, বিএনপি চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শামসুদ্দিন দিদার, শায়রুল কবির খানসহ দলটির বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

পুস্প স্তবক অর্পণের পর রাজধানীর উত্তর বিএনপির উদ্যোগে দুঃস্থদের মাঝে খাবার সামগ্রী, নগদ টাকা ও বস্ত্র বিতরন কর্মসূচিতে অংশ নেন দলের মহাসচিব সহ কেন্দীয় নেতারা।

রাজধানীর গাবতলি খালেক সিটি শাহী মসজিদের সামনে দুঃস্থদের মাঝে খাবার সামগ্রী,নগদ টাকা ও বস্ত্র বিতরন কর্মসূচী উদ্ভোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ঢাকা মহানগর উত্তর- বিএনপির আহবায়ক আমান উল্লাহ আমান ও মহানগর সদস্য সচিব আমিনুল হক। দারুসসালাম থানা বিএনপির আহবায়ক এস এ সিদ্দিক সাজুর সভাপতিত্বে ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক আনোয়ারুজ্জামান, আতাউর রহমান চেয়ারম্যান,মহানগর সদস্য এবিএমএ রাজ্জাক, স্বেচ্ছাসেবক দলের ঢাকা মহানগর উত্তরের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক গত ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ৯ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী সাইদুল ইসলাম সাইদুল, যুগ্ম আহবায়ক আরিফ মৃধা সহ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এরপর মহাসচিব স্বেচ্ছাসেবক দল ঢাকা মহানগর উত্তরের উদ্যোগে আয়োজিত খাবার বিতরণকালে তার সংগে স্বেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক এস এম জিলানী, সাধারণ সম্পাদক রাজীব আহসান,সিনিয়র সহসভাপতি ইয়াছিন আলী, গাজী রেজওয়ানুল হোসেন রিয়াজ, শেখ মোঃ ফরিদ সহ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category